২০২০ সালে হলিউড মাতানো কয়েকটি সিনেমা

২০২০ সাল শেষ হওয়ার আর মাত্র কয়েক ঘন্টা বাকি। করোনাভাইরাসের মহামারির আতঙ্কে নিয়ে কেটেছে বছরটি। প্রায় সারা বিশ্বের মানুষই ছিলো ঘরবন্দী হয়ে। তবে এর মধ্যেই মানুষকে হতাশা কাটাতে কাজ করে গেছেন শোবিজের মানুষেরা। দেশে দেশে করোনার মধ্যেও সিনেমা মুক্তি পেয়েছে। বিনোদন দিয়েছে মানুষকে।

এক্ষেত্রে দারুণ ভূমিকা রেখেছে বলা যায় ওটিটি প্লাটফর্মগুলো। নেটফ্লিক্সসহ বেশ কিছু অ্যাপসে হলিউডের কিছু সিনেমা মুক্তি পেয়েছে ২০২০ সালে। করোনা আসার আগে সিনেমা হলেও দেখা গেছে কিছু সিনেমা। আবার লকডাউন শেষ হবার পরও হলে মুক্তি পেয়েছে সিনেমা। সেগুলোর মধ্য থেকেই আলোচনা ও প্রশংসায় শীর্ষ হলিউডের ১০টি সিনেমার লিস্ট করেছেন জাগোনিউজ। এবার মনযোগ দেওয়া যাক ১০টি সিনেমার দিকে-

মাঙ্ক
ডেভিড ফিনচারের পরিচালনায় তার প্রয়াত পিতা জ্যাক ফিনচারের চিত্রনাট্য অবলম্বনে নির্মিত বায়োগ্রাফিক্যাল চলচ্চিত্র ‘মাঙ্ক’। সিনেমাটিতে অভিনয় করেছেন আমান্ডা শেফ্রিড, লিলি কলিন্স, আর্লিস হাওয়ার্ড, টম পেলফ্রে, স্যাম ট্রাটন। চলতি বছরের ৪ ডিসেম্বর মুক্তিপ্রাপ্ত সিনেমাটি যুক্তরাষ্ট্রের সমালোচকদের কাছ থেকেও বেশ ইতিবাচক সাড়া পায়। ১৯৩০-৪০ সালের হলিউড সিনেমা ইন্ডাস্ট্রির নানা দিক চলে আসে ‘মাঙ্ক’-এ।

টেনেট
চলতি বছরে বিজ্ঞান কল্পকাহিনী অ্যাকশন-থ্রিলারধর্মী সেরা চলচ্চিত্র ‘টেনেট’। ক্রিস্টোফার নোলান নির্মিত সিনেমায় মূল চরিত্রে অভিনয় করেছেন জন ডেভিড ওয়াশিংটন। তার সহযোগী চরিত্রে আছেন রবার্ট প্যাটিনসন, এলিজাবেথ ডেবিকি, মাইকেল কেইন, কেনেথ ব্রানাহ এবং বলিউড অভিনেত্রী ডিম্পল কাপাড়িয়া। সিনেমাটির কিছু অংশ ভারতেও শুটিং হয়েছে। শুধু ভালো গল্পই নয়। করোনার এই বছর সিনেমাপ্রেমীদের প্রথম প্রেক্ষাগৃহে যাওয়ার স্বাদও দিয়েছে সিনেমাটি।

দ্য ট্রায়াল অফ দ্য শিকাগো ৭

১৯৬৮ সালে আমেরিকায় ডেমোক্রেটিক ন্যাশনাল কনভেনশনের সময় দাঙ্গা বাঁধানোর দায়ে গ্রেফতার হন আটজন ব্যক্তি। তাদের বিচার চলাকালীন নানা ঘটনা নিয়ে তৈরি হয়েছে এই সিনেমাটি। ‘ব্ল্যাক লাইভস ম্যাটার’ আন্দোলনের পর নির্বাচনপূর্ব এমন সময়ে এই মুভির মুক্তি। তাই সবমিলিয়ে করোনার মাঝেও দারুণ জনপ্রিয়তা পায়। রাজনৈতিক অস্থিরতার এই সিনেমাটি পরিচালনা করেন আরন সরকিন। তারকাখচিত এই সিনেমায় অভিনয় করেন শাশা ব্যারন কোহেন, জেরেমি স্ট্রংসহ আরও অনেকে।

বার্ডস অফ প্রে
২০১৬ সালে মুক্তি পাওয়া সুইসাইড স্কোয়াড সিনেমার ইভেন্টের পরে হার্লি কুইন আর জোকার ব্রেকাপ করে। তারপর থেকেই মুলত ‘বার্ডস অফ প্রে’ সিনেমার গল্প শুরু। জোকারের সাথে ব্রেকাপের পর থেকেই হার্লির উপর একের পর এক আক্রমণ ঘটতে থাকে। হার্লি নিজের জীবন বাঁচাতে তার উপর এই হামলা কে করছে সেটা খুঁজতে নতুন এক যাত্রা শুরু করে।

সিনেমাটি পরিচালনা করেছেন ক্যাথি ইয়ান এবং রচনা করেন ক্রিস্টিনা হডসন। সিনেমাটিতে অভিনয় করেন মার্গট রবি, মেরি এলিজাবেথ উইনস্টেড, জুর্নি সোমলেট-বেল, রোজি পেরেজ, ক্রিস মেসিনা, এবং ইভান ম্যাকগ্রিগর প্রমুখ।

দ্য ভাস্ট অফ নাইট
অ্যান্ড্রু প্যাটারসন পরিচালিত এবং সিয়েরা ম্যাককর্মিক ও জ্যাক হরোভিৎস অভিনীত সিনেমা ‘দ্য ভাস্ট অফ নাইট’। ২০২০ সালে বিশ্বব্যপি মুক্তি পাওয়া এই সিনেমাটি আমেরিকান বিজ্ঞান কল্পকাহিনী ঘরনার। ১৯৫০ দশকের নিউ মেক্সিকো অবহে তৈরি এ সিনেমা ২০১৯ সালের জানুয়ারিতে স্ল্যামডেন্স ফিল্ম ফেস্টিভ্যালে প্রিমিয়ার হয়েছিল। সিনেমাটি কেকসবার্গ ইউএফও ঘটনা এবং ফস লেক অদৃশ্যতার উপর নির্মিত।

৭৫০০
চলতি বছরের অন্যতম অ্যাকশন-থ্রিলার চলচ্চিত্র ৭৫০০। সিনেমাটি রচনা এবং পরিচালনা করেন প্যাট্রিক ভোলরথ। তবে নিজের অভিষেকে সিনেমাতেই চমক লাগিয়ে দিয়েছেন পরিচালক। জোসেফ গর্ডন এর অভিনয় থেকে শুরু করে সবকিছুই ছিল তাক লাগানো। সিনেমাটির গল্প সাজানো হয় একটি বিমান হাইজ্যাককে কেন্দ্র করে। অসাধারণ নির্মাণ এবং তাক লাগানো অ্যাকশন দৃশ্য প্রশংসা কামিয়েছে বিশ্বব্যপি।

ওয়ান্ডার ওম্যান ১৯৮৪
বছর শেষে চমক হিসেবে যোগ হয়েছে ‘ওয়ান্ডার ওম্যান ১৯৮৪’। গেল ১৬ ডিসেম্বর বিশ্বজুড়ে মুক্তি পেল এ সিনেমা। ওয়ান্ডার ওম্যান ডায়নার চরিত্রে আবারও দেখা দিয়েছেন বিউটি ক্যুইন গ্যাল গ্যাডট। অন্যদিকে স্টিভের চরিত্রে এবারও আছেন ক্রিস পাইন। এছাড়াও চিতা অবতারে দেখা গেছে ক্রিস্টেন উইগ এবং এই সিরিজের ভিলেন ম্যাক্সওয়েল লর্ডের ভূমিকায় দেখা গেছে পেদ্রো পাসকেলকে।