ডেমি লোভাটো

হলিউডে যখন মি টু আন্দোলন শুরু হয় তখন পৃথিবীর বিভিন্ন প্রান্তের নারীরা যৌন হেনস্তার বিরুদ্ধে সোচ্চার হয়ে উঠেন। তারা ফেসবুকে ‘হ্যাশট্যাগ মি টু’ লিখে নিজের জীবনে ঘটে যাওয়া যৌন উৎপীড়নের ঘটনা প্রকাশ করেন। বিভিন্ন শ্রেনিপেশার নারী সেই আন্দোলনে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

সেই ধারাবাহিকতায় এবার নিজের অভিজ্ঞতার কথা জানালেন মার্কিন সঙ্গীত শিল্পী ডেমি লোভাটো। তিনি জানান, ডিজনি চ্যানেলের হয়ে কাজ করার সময় পরিচিত একজনের দ্বারা প্রথম ধর্ষণের শিকার হন। তখন তার বয়স ছিল ১৫ বছর। ওই ঘটনার পরও প্রায় প্রতিদিন ওই ধর্ষণকারীর মুখোমুখি হতে হয়েছে তাকে। ডেমি অবশ্য অভিযুক্ত ওই ব্যক্তির নাম প্রকাশ করেননি।

এসএক্সএসডব্লিউ সঙ্গীত উৎসবে ‘ডেমি লোভিটা: ড্যান্সিং উইথ দ্য ডেভিল’ তথ্যচিত্রের একটি অংশে তিনি এই তথ্য প্রকাশ করেন। মঙ্গলবার ইউটিউবে ওই তথ্যচিত্রের প্রিমিয়ার শো হয়। এতে ধর্ষণের ঘটনার পাশাপাশি মাকদাসক্ত থাকাকালীন নিজের জীবনের নানা দুর্দশার কথা উল্লেখ করেন ডেমি।

ডিজনি চ্যানেলের ওই ঘটনার পর আরেকবার ধর্ষণের শিকার হন লোভাটো। তিনি জানান, ২০১৮ সালে এক রাতে অতিরিক্ত মাদক সেবনের পর দুর্বল অবস্থার সুযোগ নিয়ে তাকে ধর্ষণ করে এক মাদক কারবারি। পরে মৃত ভেবে তাকে ফেলে যায়।

সেই ঘটনার কথা উল্লেখ করে লোভাটো জানান, এরপর তিনি দীর্ঘদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। কিন্তু মাদকের অতিরিক্ত ডোজের কারণে এক মাসের মধ্যে তিনি ধর্ষণের ঘটনা বুঝতে পারেননি।

লোভাটো জানান, দ্বিতীয়বার ধর্ষণের শিকার হওয়ার পর তার মনে পরে কৈশোরে প্রথম ধর্ষণের শিকার হওয়ার কথা। সেই ঘটনায় দীর্ঘদিন ট্রমায় ছিলেন ডেমি। দ্বিতীয়বার ধর্ষণের শিকার হওয়ার পরও তিনি ট্রমার মধ্যে পড়ে যান।

তথ্যচিত্রে নিজের সেই ট্রমার কথা বলতে গিয়ে বারবারই আবেগপ্রবণ হয়ে পড়েন ডেমি। এজন্য নিজেকে অনেক কষ্ট দিয়েছেন বলেও উল্লেখ করেন তিনি। তার মতে, এ ধনের ঘটনা সবারই প্রকাশ্যে আনা উচিত।

সূত্রঃ সমকাল, বিবিসি