প্রতারক এক গোয়েন্দা সদস্য আটক

গাজীপুরের শ্রীপুরে ডিজিএফআই গোয়েন্দা সদস্য পরিচয়দানকারী এক প্রতারককে আটক করেছে পুলিশ। পৌরসভা নির্বাচনের প্রার্থীদের কাছে চাঁদা দাবির কারণে তাঁকে আটক করা হয়েছে ।

শনিবার (৯ জানুয়ারি) দুপুর ১টার দিকে তাঁকে পৌরসভা এলাকার লোহাগাছ গ্রাম থেকে আটক করা হয়।

আটক সোহেল রানা রাকিব (৩৬) মাগুরা জেলার সদর থানার বামনখালী এলাকার আব্দুল জলিল মিয়ার ছেলে।

এলাকার কয়েকজন বাসিন্দার সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, সোহেল রানা পৌরসভা নির্বাচনের ৩ নম্বর ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী মো. হাবিবুল্লার কাছে বিভিন্ন অজুহাতে নিজেকে গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্য পরিচয় দিয়ে ৫ হাজার টাকা দাবি করেন। দর–কষাকষির পর ১ হাজার টাকা প্রার্থীর ভাইয়ের কাছ থেকে আদায় করেন তিনি। একই ব্যক্তি লোহাগাছ এলাকায় অন্য এক প্রার্থীর কাছে টাকা দাবি করলে প্রার্থী তাঁকে সন্দেহ করেন। গোয়েন্দা সদস্য হিসেবে তাঁকে তাঁর পরিচয়পত্র দেখাতে বলেন। তিনি কোনো পরিচয়পত্র দেখাতে পারেননি। এরপর স্থানীয় লোকজন তাঁকে আটক করে শ্রীপুর থানা–পুলিশে খবর দেন। পুলিশ এসে জিজ্ঞাসা করে নিশ্চিত হয় তিনি গোয়েন্দা বাহিনীর সদস্য নন। ভুয়া পরিচয় দিয়ে মানুষের কাছ থেকে প্রতারণা করে টাকা আদায় করছিলেন তিনি। পরে পুলিশ তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে আসে।

কাউন্সিলর প্রার্থী হাবিবুল্লাহ প্রথম আলোকে বলেন, ‘সোহেল রানা আমাকে চার দিন ধরে প্রায়ই ফোন দিচ্ছেন। বিভিন্ন অজুহাত দেখিয়ে আমার কাছে টাকা দাবি করছিলেন। তিনি নিজেকে গোয়েন্দা বাহিনীর প্রধান কার্যালয়ের সদস্য হিসেবে পরিচয় দিচ্ছিলেন। আমি টাকা দিতে রাজি হইনি। একপর্যায়ে আমার ভাইয়ের কাছ থেকে টাকা আদায় করেন ওই ব্যক্তি। এরপর অন্য এক প্রার্থীর কাছে টাকা আদায় করতে গেলে প্রতারণার বিষয়টি সেখানে ধরা পড়ে।’

শ্রীপুর থানার উপপরিদর্শক (এসআই) রফিকুল ইসলাম প্রথম আলোকে জানান, স্থানীয় লোকজন ওই ব্যক্তিকে আটক করে পুলিশকে জানায়। পরে বেলা দেড়টার দিকে ঘটনাস্থল থেকে তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে আসা হয়।

শ্রীপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) খন্দকার ইমাম হোসেন বলেন, আটক ব্যক্তি কিছুদিন আগে অপরাধের দায়ে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর সৈনিক পদ থেকে বরখাস্ত হয়েছেন। বিভিন্ন জায়গায় প্রতারণা করে টাকা আদায় করতেন তিনি। শনিবার দুপুরে গোয়েন্দা বাহিনীর পরিচয়ে চাঁদা দাবি করার সময় হাতেনাতে লোকজনের কাছে ধরা পড়ে যান তিনি। তাঁর বিরুদ্ধে মামলা প্রক্রিয়াধীন।