মধ্যপ্রাচ্যের তালা খুলতে হলে ইরানের কাছ থেকে ‘চাবি’ নিতে হবে

ইরানের আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান আলী আকবর সালেহি বলেছেন, তার দেশের পরমাণু সমঝোতা নিয়ে পাশ্চাত্যের সঙ্গে সৃষ্ট অচলাবস্থা কেটে যেতে শুরু করেছে। তিনি আরো বলেছেন, পরমাণু সমঝোতা নিয়ে আলোচনা টেকনিক্যাল পর্যায়ে প্রবেশ করেছে। এর অর্থ হচ্ছে, প্রাথমিক অচলাবস্থা কেটে গেছে যা ‘আশার আলো’ দেখাচ্ছে।

সালেহি শুক্রবার রাতে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ‘ক্লাব হাউজ’কে দেয়া এক সাক্ষাৎকারে এসব কথা বলেন। তিনি বলেন, আগামী সপ্তাহে ভিয়েনায় আন্তর্জাতিক পরমাণু শক্তি সংস্থা বা আইএইএ’র সদর দপ্তরে টেকনিক্যাল আলোচনা শুরু হবে। আলী আকবর সালেহি বলেন, শুক্রবারের ভার্চুয়াল বৈঠকের মাধ্যমেই মূলত এই সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

আমেরিকা পরমাণু সমঝোতায় ফিরে আসবে কিনা- তা নিয়ে এই কমিশনের একটি ভার্চুয়াল বৈঠক গতকাল (শুক্রবার) অনুষ্ঠিত হয়। বৈঠকে ইরানের সঙ্গে চীন, রাশিয়া, ফ্রান্স, ব্রিটেন ও জার্মানির প্রতিনিধিরা অংশগ্রহণ করেন। আর এতে সভাপতিত্ব করে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বা ইইউ।

বৈঠকে পরমাণু সমঝোতা থেকে আমেরিকার বেরিয়ে যাওয়ার কারণে যে ভয়াবহ পরিস্থিতি সৃষ্টি হয়েছে তা নিয়ে আলোচনা করার পাশাপাশি এখন আর এ ব্যাপারে সময় নষ্ট না করার ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়। বৈঠকে পরমাণু সমঝোতায় আমেরিকার সম্ভাব্য প্রত্যাবর্তন ও এই সমঝোতা পরিপূর্ণভাবে বাস্তবায়নের উপায় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

এ সম্পর্কে আলী আকবর সালেহি আরো বলেন, সম্ভবত আমেরিকা এই বাস্তবতা উপলব্ধি করেছে যে, ইরানের ওপর যত বেশি চাপ প্রয়োগ করা হবে ইরান তত বেশি শক্তিশালী হবে। তিনি আরো বলেন, ইরান মধ্যপ্রাচ্যের চাবিকাঠি; যদি এ অঞ্চলের তালা খুলতে হয় তবে এই চাবি দিয়েই খুলতে হবে। ইরানে শতকরা ২০ মাত্রায় সমৃদ্ধ ইউরেনিয়াম মজুদের পরিমাণ ৫০ কেজিতে পৌঁছেছে বলেও সাক্ষাৎকারে জানান আণবিক শক্তি সংস্থার প্রধান সালেহি।

পার্সটুডে