তেঁতুলে রয়েছে বহু রোগের সমাধান

তেঁতুলের নাম শুনলে জিভে পানি আসে না এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া যাবে না। আবার এই তেঁতুল খাওয়া নিয়ে নারী-পুরুষের কিছুটা বিভেদেও রয়েছে। তবে তেঁতুলের উপকারিতা নিয়ে কোনো বিভেদ নেই। যিনিই তেঁতুল খাবেন তিনিই এর উপকারিতা পাবেন।

অত্যাধিক ওজনের কারণে হার্ট, লিভার, কিডনির বিকল হয়ে পড়ে। তেঁতুল রক্তে ক্ষতিকর কোলেস্টেরল কমিয়ে উপকারী কোলেস্টেরল বাড়িয়ে দেয়।

গবেষণায় জানা যায়, ওজন কমাতে ও লিভারের সংক্রমণ রুখতে সাহায্য করে পাকা তেঁতুল। তেঁতুলের মধ্যে উপস্থিত নিকেল, ‌রুপো, ম্যাঙ্গানিজ, আয়রন শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়, প্রদাহ রোধে সাহায্য করে।
ত্বকের উন্নতিতেও বিশেষভাবে সাহায্য করে তেঁতুল। তেঁতুল দীর্ঘদিন ধরে ন্যাচারাল স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করা হয়। আলফা হাইড্রোক্সিল অ্যাসিডের জন্য ত্বকের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে এটি। এতে থাকে টার্টারিক অ্যাসিড ও ল্যাকটিক অ্যাসিড যা ত্বককে উজ্জ্বল করে তোলে।

তেঁতুলে রয়েছে উচ্চমাত্রার অ্যাসিড, চিনি, ভিটামিন বি, এবং ক্যালসিয়াম। কাঁচা অথবা পাকা তেঁতুল খেলে উচ্চ রক্তচাপ বা হাইপ্রেসার তাৎক্ষণিকভাবে উপশম হয়।

তেঁতুলে টারটারিক অ্যাসিড থাকায় খাবার হজমে সহায়তা করে। পাকা তেঁতুল ভিজিয়ে রেখে সকালে শুধু পানি খেলে হাত-পায়ের জ্বালা কমে। পেটের বায়ু, হাত-পা জ্বালায় তেঁতুলের শরবত খুব উপকারী। অত্যধিক জ্বর কমাতেও তেতুল কার্যকর। স্কেলিটাল ফ্রুরোসিস রোগের প্রকোপ হ্রাস করতেও তেঁতুল ব্যবহৃত হয়।