গাজীপুরে মাদ্রাসা ছাত্র হত্যার রহস্য উন্মোচন

গাজীপুর সদর উপজেলার পিরুজালী এলাকায় বিল্পব আকন্দ নামে এক মাদ্রাসার ছাত্রকে হত্যা করা হয়েছিল। সে গত ৮ মার্চ রাত সোয়া ৮টার দিকে মসজিদে এশার নামাজ পড়ার কথা বলে ঘর থেকে বের হলে এ হত্যাকান্ডের শিকার হয়। হত্যার ৩মাস পর হত্যার রহস্য উন্মোচন করেছে জেলা পুলিশ ব্যুরো অব ইনভেস্টিগেশন (পিবিআই)। এ ঘটনায় সরাসরি জড়িত নিহতের বাবা ও ফুপাতো ভগ্নিপতিকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

শুক্রবার (১১ জুন) তাদের গাজীপুর আদালতে পাঠানো হলে সেখানে আসামিরা হত্যাকাণ্ডের কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। গাজীপুর পিবিআইয়ের পুলিশ সুপার মোহাম্মদ মাকছুদুর রহমান বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

গ্রেপ্তাররা হলেন— গাজীপুর সদর উপজেলার পিরুজালী আকন্দপাড়া গ্রামের মৃত আমজাদ হোসেন আকন্দের ছেলে বাবুল হোসেন আকন্দ (৪২) ও তার ভাগ্নী জামাই একই গ্রামের হাবিবুর রহমানের ছেলে মো. এমদাদুল (৩৫)।

নিহত বিপ্লব আকন্দ (১৪) গাজীপুর সদর উপজেলার পিরুজালী আকন্দপাড়া গ্রামের বাবুল হোসেন আকন্দের ছেলে। সে নারায়ণগঞ্জে একটি মাদ্রাসায় লেখাপড়া করতো।

পুলিশ সুপার জানান, গত ৮ মার্চ রাত ৮টার দিকে বিল্পব আকন্দ মসজিদে এশার নামজ পড়তে যাচ্ছিলো। যাওয়ার পথে একটি বাঁশ ঝাড়ের কাছে নিয়ে নেশাজাতীয় দ্রব্য মেশানো কোমল পানীয় খাওয়ায় আসামিরা। এতে কিছুক্ষণ পর সে মাটিতে পড়ে যায়। পরে একটি কোদাল দিয়ে কুপিয়ে তাকে হত্যা করা হয়। আসামির দেওয়া তথ্যমতে হত্যায় ব্যবহৃত কোদালটিও জব্দ করা হয়েছে।

পুলিশ সুপার আরও জানান, আসামিদের আদালতে সোপর্দ করলে তারা ঘটনার সঙ্গে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করে জবানবন্দি দিয়েছেন। হত্যার সঙ্গে জড়িত অন্যদেরও গ্রেপ্তার করা হবে বলেও জানান পুলিশের এই কর্মকর্তা।

Advertisements