করোনায় আক্রান্ত গাজীপুরের সিটি মেয়র

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমসহ কিছু সংবাদমাধ্যমে গুজব রটে গাজীপুর মহানগরের বহিষ্কৃত সাধারণ সম্পাদক ও সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলম আটক হয়েছেন। তবে তিনি আটক হননি বলে সংবাদমাধ্যমকে নিজেই নিশ্চিত করেছেন।

রোববার (২১ নভেম্বর) সন্ধ্যার দিকে এই প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত তিনি বাসাতেই অবস্থান করছেন বলে জানিয়েছেন।

তিনি বলেন- ‘আমি আটক হইনি, এটা গুজব। গুজবই আমারে খাইলো। আমি বাসাতেই অবস্থান করছি।’

এর আগে আজ সন্ধ্যার দিকে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমসহ কয়েকটি গণমাধ্যমে ব্রেকিং নিউজ আসতে থাকে মেয়র জাহাঙ্গীর আটক হয়েছেন। এর কিছুক্ষণ পরেই আবার সেই ব্রেকিং নিউজ সরিয়ে নেওয়া হয়।

প্রসঙ্গত, গাজীপুর সিটি করপোরেশনের মেয়র জাহাঙ্গীর আলমের গোপনে ধারণ করা একটি ভিডিও কিছু দিন আগে ফেসবুকসহ বিভিন্ন মাধ্যমে ভাইরাল হয়। এতে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও জেলার কয়েকজন গুরুত্বপূর্ণ নেতা সম্পর্কে বিতর্কিত মন্তব্য করা হয়েছে বলে আওয়ামী লীগের নেতা-কর্মীরা অভিযোগ করেন। এরপর মেয়র জাহাঙ্গীরকে শোকজ করে আওয়ামী লীগ।

গতকাল শনিবার (২০ নভেম্বর) দুপুর ১২টায় গাজীপুর মহানগরীর হারিকেন এলাকায় নিজ বাসভবনে সংবাদ সম্মেলন করে মেয়র জাহাঙ্গীর বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে আমার বিষয়ে মিথ্যা তথ্য দেওয়া হয়েছে।

মেয়র দাবি করেন, দুই মাস ধরে তিনি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করার চেষ্টা করছেন। তবে তাকে দেখা করার অনুমতি দেওয়া হয়নি।

এর আগে গত ১৯ নভেম্বর মেয়র জাহাঙ্গীর আলমকে আওয়ামী লীগ থেকে আজীবনের জন্য বহিষ্কার করা হয়। প্রধানমন্ত্রীর সরকারি বাসভবনে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী কমিটির সভা থেকে এ সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা।

জাহাঙ্গীর আলম গাজীপুর মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। গত ২২ সেপ্টেম্বর ঘরোয়া আলোচনার রেকর্ড ফেসবুকে ছড়িয়ে পড়ার পর আওয়ামী লীগের একটি অংশ মেয়র জাহাঙ্গীরের বিরুদ্ধে বিক্ষোভে নামে।

এরপর গত ৩ অক্টোবর মেয়র জাহাঙ্গীরের ব্যাখ্যা চায় আওয়ামী লীগ। এতে তাকে ১৫ দিন সময় দেওয়া হয়। ১৮ অক্টোবর সময়সীমা শেষ হওয়ার আগেই মেয়র তার ব্যাখ্যা দেন।

Advertisements