কলেজের জায়গায় আ.লীগ নেতার পাকা ঘর নির্মাণের অভিযোগ

গাজীপুরের শ্রীপুরে আওয়ামী লীগ নেতার বিরুদ্ধে কলেজের জমি দখলের অভিযোগ উঠেছে। ফেসবুকে বিষয়টি ভাইরাল হলে টনক নড়ে কলেজ কর্তৃপক্ষের। শুধু দখল নয়, ওই জমিতে মাল্টা বাগান করেছেন তিনি। এখন গড়ে তুলেছেন পাকা ঘর।

জানা গেছে, হারুন অর রশিদ বাদল নামে যে ব্যক্তির বিরুদ্ধে অভিযোগ তিনি উপজেলা আওয়ামী লীগের আহ্বায়ক কমিটি সদস্য ও বরমী ইউনিয়ন উচ্চবিদ্যালয় পরিচালনা পর্ষদের সভাপতি।

সরেজমিনে দেখা যায়, উপজেলার বরমী ইউনিয়ন গিলাশ্বহর গ্রামে বরমী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ছয় বিঘা জমি দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে মাল্টার বাগান। পাশাপাশি এখানে পাকা ঘর উঠছে।

জানা যায়, ১৯৮৯ সালে বরমী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজ স্থাপিত হয়। তখন সাবেক চেয়ারম্যান ইসমাঈল হোসেন ওই কলেজের নামে ছয় বিঘা জমি রেজিস্ট্রি করে দেন।

বরমী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ইউপি সদস্য হারুন খন্দকার বলেন, এই জায়গাটি কলেজের নামে থাকলেও কলেজ কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়াই অনেক আগে থেকে হারুন অর রশিদ ভোগদখল করে খাচ্ছেন। কর্তৃপক্ষ জানার পরেও কোনো ব্যবস্থা নেয়নি। এখন শুনছি ওই জায়গাতে ইটের ঘর নির্মাণ চলছে।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে বরমী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের ইসলামের ইতিহাস বিভাগের প্রভাবক সুরুজ্জামান বলেন, কলেজ প্রতিষ্ঠার জন্য সরকারি নিয়ম অনুযায়ী নয় বিঘা জমির প্রয়োজন ছিল। এ জন্য ১৯৮৯ সালে মো. ইসমাইল হোসেন ছয় বিঘা জমি লিখে দেন। এ জমির খাজনা কলেজ কর্তৃপক্ষ বহন করছে। কয়েক দিন হলো জায়গা দখলের খবর শুনছি। দখলের খবর শোনার পর কলেজ কর্তৃপক্ষ জমিতে গিয়ে কাজ না করার জন্য মৌখিক ভাবে বলে এসেছে।

বরমী বিশ্ববিদ্যালয় কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ মো. নুরুজ্জামান খানের সঙ্গে যোগাযোগ করতে কলেজে গিয়ে তাঁকে পাওয়া যায়নি। তাঁর ব্যক্তিগত নম্বরে একাধিকবার কল দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

শ্রীপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) তরিকুল ইসলাম বলেন, এ বিষয়ে আমি শুনেছি। তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে কলেজের সহকারী অধ্যক্ষ এসেছিলেন। তাঁকে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিতে বলা হয়েছে।

অভিযোগের বিষয়ে মন্তব্য চাইতে আওয়ামী লীগ নেতা হারুন অর রশিদ বাদলের সঙ্গে ফোনে যোগাযোগ করা হয়। তিনি অভিযোগের বিষয়ে কোনো কথা বলতে অস্বীকার করেন। উত্তেজিত হয়ে বলেন, আমি তো আজকাল সাংবাদিকের সাথে কথা বলি না, সাংবাদিকদের সাথে কথা বলা বাদ দিয়েছি। তাগর যা মন চায় লেকবার লাইগ্গা দায়িত্ব দিছি। আমার বিরুদ্ধে যা মনে চায় আপনারা করেন।

সূত্রঃ আজকের পত্রিকা

Advertisements