আজ জাফর ভাই’র জন্মদিন, লিডারের জন্মদিবস

বাংলাদেশ মফস্বল সাংবাদিক ফোরাম (বিএমএসএফ) এর প্রতিষ্ঠাতা সাধারন সম্পাদক আহমেদ আবু জাফর ভাইয়ের আজ শুভ জন্মদিন। দিবসটি উপলক্ষে সারাদেশে বিএমএসএফ এর শাখাসমূহে কেক কাটা, আলোচনা সভা, দোয়া মাহফিলের আয়োজন করা হয়েছে।
সুপ্রিয় সাথী ও বন্ধুরা, আসুন আজ সোমবার দিবাগত রাত ১২ টা ০১ মিনিটে সকলেই একযোগে প্রিয় নেতার দীর্ঘায়ু ও সর্বাঙ্গীন মঙ্গল কামনা করি, শুভেচ্ছা বার্তা পাঠাই।

সবার প্রিয়জনে পরিনত আহমেদ আবু জাফর শুধু সংগঠনের নেতা কর্মিদের নিয়েই নয়, সমগ্র সাংবাদিক সমাজকে নিয়েই তার চিন্তা ভাবনা সদা সর্বদা। সাংবাদিকদের কল্যাণ ভাবনায় যার রাত কাটে, দিন কাটে…নির্যাতিত অসহায় সাংবাদিকদের জন্য যার কাঁদে প্রাণ। রাজধানী থেকে জেলা, উপজেলা, প্রত্যন্ত জনপদে অবিরাম ছুটে চলা একজন আহমেদ আবু জাফর আসলেই বিকল্পহীন। শত শত শাখার খোঁজ নিয়েই যিনি ক্ষ্যান্ত নন, প্রতিটি সদস্য’র হালফিল জানাও যেন তার নিত্যদিনের দায়িত্ব, কর্তব্য।

তার সাদামাটা আলাপ আলোচনা, ভিন্নমাত্রার বৈঠক কিংবা নিছক বন্ধু বান্ধব নিয়ে সময় কাটানোরও সময়ও বারবারই উঠে আসে বিএমএসএফ আর তার অসহায় সাংবাদিক বন্ধুদের কথা। চালচলন, আচরণে কোথাও তার হামবড়া ভাব নেই, অতি সাদামাটা জীবন ধারনকারী আহমেদ আবু জাফর সাংগঠনিক সকল কাজেরই পুরোধা। নিজ হাতেই যাবতীয় কর্মকান্ডের সূচণা করাসহ পরতে পরতে থাকে তার দক্ষতা আর পরিশ্রমের ছোঁয়া।

সারারাত মোবাইল ফোনে কল, এসএমএস আর অনলাইন ম্যাসেঞ্জারে সাংবাদিকদের হালফিল খবরা খবর আসতে থাকে, ফিরতি জবাব দিতেও কালক্ষেপণ করেন না তিনি। কোথায় কোন সাংবাদিকের স্বজন অসুস্থতায় ভুগছে, কোন সাংবাদিকের উপর আঘাত হেনেছে দুর্বৃত্তরা, কার উপর চলছে পুলিশি হয়রানি কিংবা অন্য কোনো আপদ। মুহূর্তেই ব্যস্ত হয়ে পড়েন সবার প্রিয় জাফর ভাই। কে সংগঠনের আর কে সংগঠনের নয়, সে হিসেব কষার সময় তার নেই। চেনা, অচেনা সকল সাংবাদিকের জন্যই অভিন্ন দরদ নিয়ে এগিয়ে যাওয়া আরেকজন জাফরের খোঁজ যে সারাদেশেও মিলবে না তা কিন্তু হলফ করে বলা যায়।

হিংসা, বিদ্বেষ, অহঙ্কারমুক্ত এক ব্যতিক্রম মানুষ জাফর ভাই, সবার প্রিয়জন। সাংগঠনিক নেতৃত্বকে বিকেন্দ্রীকরণের মাধ্যমে তৃণমূল পর্যায়ে ছড়িয়ে দেয়ার অদম্য বাসনা নিয়েই পথচলা তার। স্বপ্ন দেখেন স্বনির্ভর সাংবাদিক সমাজের, পেশাদার সব সাংবাদিকের মর্যাদা আদায়ের। কখনও ভালবাসার মানুষ থেকেই কষ্ট পান, অনাকাঙ্খিত আঘাতে মুষঢ়ে পড়েন; তবুও তার ছাপ চেহারায় ফুটতে দেন না, চোখের পানি মুছে ফেলেন সবার অলক্ষ্যে।

শত্রু, মিত্র, কুটকৌশলী সবাইকে পরম আদরে বুকে টেনে নিতে বিন্দুমাত্র দ্বিধা নেই তার, তা তিনি করেনও না। স্মিত হেসে বলে উঠেন, আজ যে বুঝছে না কাল দেখবেন সবচেয়ে ভাল কাজটি তার দ্বারাই হবে। ভালবাসার দেয়াল ডিঙ্গিয়ে কোথায় যাবে তারা? বিশাল হৃদয় আর খোলা মন নিয়ে পথ চলা আহমেদ আবু জাফর সবার পাশে থাকতে চান, সব বিপদে..আজ সেই মানুষটির জন্মদিন…আসুন তাকে নির্ভেজাল ভালবাসা দেই, দেই আন্তরিক ভালবাসা!!

Advertisements